সময় পরিমাপের জন্য ৬০ এবং ১২ ব্যবহার করা হয় কেন?



"Technology Updates" বিভাগে এটি যুক্ত করেছেন 2 months পূর্বে

প্রাচীনকালে সময়ের পরিমাপের জন্য সবাই সূর্যৈর উপর নির্ভর ছিল। ওই সময়ে টাইমের অনুমান বলতে সূর্যোদয় এবং সূর্যাস্তের প্রভাব 100 শতাংশ। তারপর আসে শশী এবং নক্ষত্ররা। ব্যাবিলন ও মিশরে ব্যবহৃত পদ্ধতিগুলি নীচে আলোচনা করলাম।

ব্যাবিলনিয়ান পদ্ধতি:
প্রথমত, 60 সেকেন্ডের বিভাজনটি ব্যাবিলনিয়ানরা এনেছিল যারা গণনাবিজ্ঞান ও জ্যোতির্বিদ্যার জন্য ডুওডেসিমাল(12) সেক্সেজিসিমাল (60) ব্যবহার করত। খ্রিস্টপূর্ব ৪র্থ মিলেনিয়ামের শেষে পাওয়া প্রোটো-কিউনিফর্ম লিপিতে দেখা যায় 60-কে বেস হিসেবে ইউজ করে 1,10,60,600,3600… ইত্যাদি সংখ্যার ব্যবহার ও ভাষা-সংকেত ব্যবহার করে। কারণ প্রাচীন মেসোপোটেমিয়ায় সুমেরীয়দের ব্যবহার্য ভাষাই ছিল কিউনিফর্ম।

তারা 60 সংখ্যাটিকে সর্বপ্রথম মর্যাদা দেয়। 60-কে বেস ধরে হিসেব করা হত। প্রকৃতপক্ষে এ পরিমান ব্যবস্থাটি সুমেরীয়দের কাছ হতে সৈকত নেওয়া যারা খ্রিস্টপূর্ব 3500 সাল নাগাদ এটি সম্পূর্ণরূপে ইউজ করত শুধুমাত্র গাণিতিক বিভাজনের উপর কেন্দ্র ক’রে। 12 ধরে নেওয়া 10 ও 100 এর চেয়ে পর্যাপ্ত বেশি কার্যকর। 12 নিজেই 2,3,4,6, এবং 12 মাধ্যমে বিভাজ্য। যেখানে 10-এর ক্ষেত্রে শুধুমাত্র তিনটি বিভাজক 2,5,10 পাওয়া যায়। সময়কে ছোট সংখ্যায় ভাঙতে গেলে 10 ধরলে বিপদের তৈরি হতে পারে। কারণ আমাদের ব্যবাহার্য সময় সর্বদাই পূর্ণসংখ্যা হওয়া প্রয়োজন।

আরো বহু ভাল হয় যদি 5,10,15..ইত্যাদি সংখ্যায় ভেঙে নেওয়া যায়। নির্ভুল এখানেই চাই সুবিশাল সংখ্যার। তারপর 60-এর আগমন যাহার বিভাজকের সেটে 10 রয়েছে। এরকম 6-টি 10 পাওয়া গেলে 60-কে সহজেই ছয়টি সিমেট্রিক অংশে অংশ করা সম্ভব।
60 ধরলে 12টি বিভাজক পাওয়া যায় ও 60 = 5 x 12। 60-কে 10 ​​এবং 12 উভয় দিয়েই ভাগ করা যায়।

তবে সুমেরীয়দের ব্যবহার করা 60-বেস সিস্টেমকে Pure 60 Base বা মূল উপায় যায় না। রিজন 60টি আলাদা ইঙ্গিত ছিল না কিউনিফর্মে। তারা 10-কে Sub-base হিসেবে ইউজ করে 10-এর জন্য আলাদা চিহ্ন ব্যবহার করত। এগুলি হল Sign-Value Notation বা সাংকেতিক হরফ। 1 থেকে 9 অব্দি সংখ্যাকে পাবলিশ করার জন্য তিনকোণা হরফ ব্যবহার করা হত এবং 10-এর জন্য দুইদিকে বর্ধিত দাগযুক্ত তিনকোণা হরফ।

দ্বিতীয়ত, ব্যাবিলনিয়ানদের ক্ষেত্রে, একটি বৃত্তের ব্যাসার্ধকে ছয়টি অন্তর্লিখিত ত্রিভুজের ১টি ষড়ভুজ ধরা হত রিজন ওদের হিসেবে 360দিনে এক বছর হত। এইভাবে ১টি বৃত্তের দ্বারা ছ’টি কোণ দ্বারা এক একটি “প্রাকৃতিক কোণ” গণনা করা হত, অর্থাৎ বিশ্বের সূর্যকে প্রদক্ষিণ করার 1/6 সময়। সুমেরীয়দের কাছ থেকে উত্তরাধিকার সূত্রে স্বীকৃত এটিও।

মিশরীয় পদ্ধতিঃ
২৪ ঘন্টার দিনটি প্রাচীন মিশরীয়দের কাছ হতে এসেছিল যারা দিনের সময়টিকে সূর্যঘড়ির মতো ডিভাইস দিয়ে 10 ঘন্টার সংখ্যায় বিভিন্ন অংশে বিভক্ত করেছিল এবং দিনের শুরুতে ১টি Starting Hour বা শুরুর ঘন্টা ও দিনের শেষে একটি Ending Hour বা শেষের ঘন্টা অর্থাৎ সর্বমোট 12টি সমান অংশে দিনকে (বা সূয্যি যতটুকু টাইম দেখা যায় সেই সময়কে) অংশ করা হয়েছিল।


মিশরীয়রা 12টি নক্ষত্রের অবস্থানের উপর কেন্দ্র করে রাতের 12 ঘন্টা হিসেব করত। প্রাকৃতিকভাবেই তাদের মধ্যে এই বোধের সঞ্চার হয় যে সূয্যি যতক্ষণ আকাশে থাকে সঠিক ততক্ষণই আসমানের নীচে থাকে। অর্থা সমান সময়। সেই সময় নক্ষত্রগুলির পর্যবেক্ষণের ভিত্তিতে 12 ঘন্টায় বিভিন্ন অংশে বিভক্ত করা হয়ে যায় রাতের সময়কে। আরও বলতে গেলে, মিশরীয়দের ‘ডেকানস’ নামে 36 টি তারকাগোষ্ঠীর একটি সিস্টেম ছিল – এটি বেছে নেওয়া হয়েছিল রিজন নির্দিষ্ট সময় পরে ১টি করে তারা আবির্ভূত হ’ত প্রত্যেক ঘন্টার শুরুতে। এমনভাবে করা হয়েছিল যাতে 10 দিন পরে ১ম তারাটি আবার ফিরে আসে। এভাবে 36×10=360 কর্তৃক বছরের হিসেব রাখা সুবিধাজনক ছিল। এটি ছিল ওদের Star System of Time measurement, পরবর্তীতে যা আরো পুষ্ট হয়ে গিয়ে ছিল বলা হয় মিশরীয় লিপিতে জানা যায়। সজ্জাগুলি নজরদারি করে রাতের বেলা মানুষকে সময় নির্ধারণে সহযোগিতা করার জন্য টেবিলগুলি সৃষ্টি করা হয়েছিল। আশ্চর্যজনকভাবে এ জাতীয় টেবিলগুলি সার্কোফেগাস (মমির কফিন) ভিতরেও পাওয়া গেছে, সম্ভবত মৃতের টাইম নির্দেশ করার জন্য ইউজ করা হত। এখানেও সেই 60 ও 12-সংখ্যার পদ্ধতি।

সমস্ত প্রাচীন সভ্যতাই আসমানে সূর্য, শশাঙ্ক এবং নক্ষত্রের অবস্থানের উপর কেন্দ্র ক’রে সময়ের প্রাইমারি গণনা করত।


আরেকটি মত অনুসারে, সুমেরীয় ও পরে মিশরীয়দের নিকট 12 একটি ইম্পোর্টেন্ট পরিমান ছিল। উদাহরণস্বরূপ,এক সালের চন্দ্রচক্রের সংখ্যা এবং রাশিচক্রের নক্ষত্রগুলির সংখ্যা। দিন ও রাত প্রত্যেকটিকে 12 পিরিয়ডে বিভিন্ন অংশে বিভক্ত করা হয়েছিল, এবং 24 ঘন্টার সূত্রপাত। পরবর্তীতে মধ্যযুগে প্রচুর নিউ যন্ত্রের উৎপত্তি ঘটে ও বিভিন্ন সভ্যতায় প্রাপ্ত সময় গণনাপদ্ধতির ব্যাপক সংযুক্তিকরণ ঘটে সুবিশাল সুবিশাল “ক্যালেন্ডার ঘড়ি”-র মাধ্যমে। সমুদয় কিছুর মধ্যেই কমন ছিল 60-এর ব্যাপারটি।

তাছাড়াও পর্যাপ্ত রকম বর্ণনা দেওয়া যায়। যেমন- হাতের আঙুলের পরিমাণে 12 সংখ্যাটি মাধ্যমে সময় গণনার উদ্ভব।

রোমান পদ্ধতিঃ
তখনকার ব্যবহৃত সূর্যঘড়ি গ্রীকরা পরিমার্জন করেছিল ও কয়েক শতাব্দী পরে রোমানরা আরও উন্নয়ন ঘটিয়ে জলঘড়িকে সূর্যঘড়ির সঙ্গে সমানভাবে মিলিয়ে দিয়েছিল অর্থাৎ Sync করেছিল। রাত্রিতে বা কুয়াশাচ্ছন্ন দিনে সময় সিলেক্ট করার জন্যই এটি করা হয়েছিল। ক্লিপসিড্রা (Clepsydra) হিসাবে অবগত ছিল এ যন্ত্র এবং পদ্ধতি দুটোই। সময় পরিমাপ করতে জলের নির্ঝর ব্যবহার করা হত প্রাচীন রোমে। অর্থাৎ রানিং পদ্ধতিকেই রোমানরা বেছে নিয়েছিল।


কিছু বই:
Simon Garfield -এর “Timekeepers”, Georges Ifrah -এর “The Universal History of Numbers”, Toby Wilkinson -এর ” The Dictionary of Ancient Egypt”, Sir EA Walis Budge -এর লিখনি “Egyptian Magic” বইগুলি পাঠ করলে বেশ কিছুটা জানা যাবে বা আন্দাজ পাওয়া যাবে।

আশা করি আমি আপনাদের বুঝাতে উপযোগী হয়েছি।




⌛ 1 টি উত্তরঃ
প্রশ্নটিতে উত্তর দেওয়ার জন্য প্রাপ্ত সম্মানি ইতিমধ্যে আপনার একাউন্ট এ যুক্ত হয়েছে । ধন্যবাদ BDHelper24.Com এর সাথে থাকার জন্য।

  1. BD Helper
    উত্তর টি লিখেছেন Dec 8, 2022 at 9:44 am (মন্তব্য করুন) (রিপোর্ট করুন)

    সময় পরিমাপের জন্য ৬০ এবং ১২ ব্যবহার করা হয়


উত্তর দিয়ে ১০০০ টাকা পুরস্কার জিতুন, বিস্তারিত...
উত্তর টি এখানে লিখুনঃ

অন্যকোন সাইট বা এপ থেকে কপি পেষ্ট করা যাবে না

অতি সংক্ষিপ্ত কোনো উত্তর এর জন্য সম্মানি পাবেন না, তাই চেষ্টা করুন আপনার উত্তর এ যেনো কমপক্ষে 50 Characters বা তার বেশি থাকে



Crypto Currency কি এবং কিভাবে পাওয়া যায় ?

Question BD Helper এটি যুক্ত করেছেন Answers


Email এবং Gmail এর মধ্যে পার্থক্য কি কি ?

Question BD Helper এটি যুক্ত করেছেন Answers


VAR কি এবং কিভাবে কাজ করে?

Question BD Helper এটি যুক্ত করেছেন Answers


জেনে নিন White Noise কি এবং কি এর উপকারিতা

Question BD Helper এটি যুক্ত করেছেন Answers


বিয়ে করার আগে কি করতে হয় জেনে নিন।

Question BD Helper এটি যুক্ত করেছেন Answers